বৃহস্পতিবার ডিসেম্বর ৩, ২০২০ || ১৮ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

করোনার সতর্কতা নিয়েই শুরু প্রিমিয়ার লিগ

খবর২৪ডেস্ক

সাধারণত বিপিএলে এমনটা দেখা যায়। মিরপুর স্টেডিয়ামের বিসিবি একাডেমি মাঠে বসে ক্রিকেটারদের মেলা। একই মাঠে পালাক্রমে অনুশীলন করে সবগুলো দল। সকাল থেকে ব্যস্ত থাকে মাঠ। কোলাহল কমে সাঁঝের আগে।

গতকালও বিসিবি একাডেমিতে দেখা গেল একই চিত্র। আজ শুরু হতে চলা বঙ্গবন্ধু ঢাকা প্রিমিয়ার লিগের জন্য একাডেমি মাঠে হাজির হয়েছিল ক্লাবগুলো। ১২ ক্লাবের আটটিই গতকাল অনুশীলন করেছে এই মাঠে। সকালে আবাহনী, পারটেক্স, দুপুরে ওল্ডডিওএইচএস, ব্রাদার্স ইউনিয়ন, দুপুরের পর গাজী ক্রিকেটার্স, মোহামেডান ও বিকালে প্রাইম দোলেশ্বর ও প্রাইম ব্যাংক অনুশীলন করেছিল।

করোনা ভাইরাসের আতঙ্কের মাঝেও লিগের প্রস্তুতিতে দিনভর ব্যস্ত ছিল বিসিবি একাডেমি মাঠ। তবে বিসিবি থেকে জানানো হয়েছে, পর্যাপ্ত সতর্কতা অবলম্বন করেই আজ থেকে মাঠে গড়াবে প্রিমিয়ার লিগ। এজন্য ক্লাবগুলোকে কিছু নির্দেশনা দিয়ে দিয়েছে বিসিবি। ক্রিকেটারদেরও বার্তা দেওয়া হয়েছে। কোনো ক্রিকেটারের ন্যূনতম লক্ষণ পাওয়া গেলেই বিসিবির মেডিক্যাল বিভাগকে জানাতে বলা হয়েছে।

গতকাল মিরপুর স্টেডিয়ামে প্রিমিয়ার লিগের টাইটেল স্পন্সর ঘোষণার সংবাদ সম্মেলনে বিসিবির প্রধান নির্বাহী নিজামউদ্দিন চৌধুরী সুজন বলেছেন, ‘এই করোনা ভাইরাস উপলক্ষ্যে সরকার যেসব পদক্ষেপ গ্রহণ করছে বা যেসব মেডিক্যাল নির্দেশনা দিচ্ছে, আমরা ওগুলোতে একাত্মতা প্রকাশ করছি। কোনো খেলোয়াড় বা কারো যদি ওরকম লক্ষণ দেখা দেয় তাহলে বিসিবির মেডিক্যাল টিম পরীক্ষা করাবে।’

সাধারণত ম্যাচের পর হ্যান্ডশেক তথা করমর্দন করে থাকেন দুই দলের ক্রিকেটাররা। এখন সেই পথে না হাঁটতেই পরামর্শ দিয়েছে বিসিবি। নিজামউদ্দিন চৌধুরী সুজন বলেছেন, ‘হ্যান্ডশেকের যে প্রচলিত বিধান সেটা কীভাবে মিনিমাইজ করা যায় সেটা আমরা দেখছি। এটায় আমরা অভ্যস্ত। তবে চারপাশে এখন যে প্র্যাকটিসটা হচ্ছে এবং সরকারি যে নির্দেশনা সেটা আমরা অনুসরণ করার চেষ্টা করব। এসব এ্যাডভাইস আমরা দলগুলোকে দিয়ে দেব। তারা যেন সেটা অনুসরণ করে। এসব ম্যাচে ওভাবে নিয়মনীতি করব না।’ এমনকি মাঠে দর্শকদের উপস্থিতিও নিরুত্সাহিত করছে বিসিবি।

করোনা আতঙ্কের কারণে প্রতিটি ম্যাচেই বাড়তি নজর থাকবে বিসিবির। গতকাল বিসিবির প্রধান নির্বাহী বলেছেন, ‘কারো যদি এরকম লক্ষণ দেখা দেয় তাহলে যেন জরুরি ভিত্তিতে আমাদের মেডিক্যাল টিমের সঙ্গে যোগাযোগ করে। আমাদের প্রত্যেকটা মাঠেই ম্যানেজার আছেন, যারা আমাদের সঙ্গে সারাক্ষণই যোগাযোগ রাখেন বিভিন্ন বিষয় নিয়ে। এ ছাড়া স্ট্যান্ডার্ড মেডিক্যাল প্রটোকল তো ফলো করতেই হবে। এটা যেহেতু লিস্টে কম্পিটিশন।’

প্রাথমিকভাবে চট্টগ্রাম, কক্সবাজারে প্রিমিয়ার লিগের তিন রাউন্ড আয়োজনের সিদ্ধান্ত হয়েছিল। কিন্তু শেষ মুহূর্তে ঢাকায় ফেরানো হয় লিগ। মিরপুর স্টেডিয়াম, ফতুল্লার খান সাহেব ওসমান আলী স্টেডিয়াম ও বিকেএসপিতে অনুষ্ঠিত হবে লিগের ম্যাচ।

জাতীয় দলের ক্রিকেটাররাও খেলবেন লিগে। তাই জমজমাট লিগ হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। যদিও করোনার আতঙ্ক কতটা প্রভাব ফেলবে তা দেখার বিষয়।

আজ প্রথম রাউন্ডের প্রথম দিনে তিন ভেন্যুতে তিনটি ম্যাচ অনুষ্ঠিত হবে। মিরপুরে ডিফেন্ডিং চ্যাম্পিয়ন আবাহনী খেলবে প্রথম বিভাগ থেকে উঠে আসা পারটেক্স স্পোর্টিং ক্লাবের বিপক্ষে। বিকেএসপির চার নম্বর মাঠে লিজেন্ডস অব রুপগঞ্জের প্রতিপক্ষ প্রথম বিভাগ থেকে উঠে আসা আরেক ক্লাব ওল্ডডিওএইচএস। ফতুল্লায় প্রাইম দোলেশ্বরের মুখোমুখি হবে ব্রাদার্স ইউনিয়ন। সবগুলো ম্যাচ শুরু হবে সকাল ৯টায়।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *