বৃহস্পতিবার সেপ্টেম্বর ২১, ২০১৭ || ৬ই আশ্বিন, ১৪২৪ বঙ্গাব্দ

দেশে হ্যাকারদের জন্য প্ল্যাটফর্ম তৈরি করছে বিটল্স

খবর২৪ডেস্ক
উন্নত বিশ্বের আদলে এবার বাংলাদেশেই হ্যাকারদের জন্য ক্রাউড সোর্স সিকিউরিটি প্ল্যাটফর্ম তৈরি করছে দেশীয় সাইবার নিরাপত্তা প্রতিষ্ঠান বিটল্স সাইবার সিকিউরিটি লিমিটেড। নির্বাচিত হ্যাকারদের জন্য আর্থিক সুবিধাসহ বিভিন্ন প্রজেক্টে কাজ করার সুযোগ এবং ভবিষ্যতে একই প্রতিষ্ঠানে কর্মসংস্থানেরও সুযোগ রয়েছে।

বুধবার এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে গণমাধ্যমকে এ তথ্য জানিয়েছে বিটল্স। প্রতিষ্ঠানটি বলছে, সারা পৃথিবী থেকে সেরা হ্যাকারদের বিভিন্ন প্রোগ্রামের মাধ্যমে কাজের সুযোগ দেয় গুগল, ফেসবুক, মাইক্রোসফটের মতো বড় প্রতিষ্ঠানগুলো। বাংলাদেশেও বিভিন্ন স্কিল সেটের হ্যাকার থাকলেও তারা সরকারি বা বেসরকারি কোন কার্যক্রমে অংশ নেওয়ার সুযোগ পাচ্ছে না। তাদের যথাযথ সম্মানও দেওয়া হচ্ছে না। ডিজিটাল বাংলাদেশের সাইবার নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে দেশীয় হ্যাকারদের জন্য বিটল্স প্রাথমিক অবস্থায় ক্রাউড সোর্স সিকিউরিটি প্ল্যাটফর্ম তৈরি করছে।

ক্রাউড সোর্স সিকিউরিটি প্ল্যাটফর্মে সদস্য হতে হলে প্রথমে beetles.io ঠিকানায় একটি নিরীক্ষণ পদ্ধতিতে অংশগ্রহণ করতে হবে। যারা এই প্ল্যাটফর্মে চূড়ান্তভাবে অংশ নেওয়ার সুযোগ পাবেন তারা সাইবার সিকিউরিটির সার্ভিস, পেনিট্রেশন টেস্টিং, ভালনিরাবিলিটি এসেসমেন্ট, সোর্সকোর্ড অডিট, ফরেনসিক, ম্যালওয়ার অ্যানালাইসিস, আইওএ, আইওসি, মোবিলিটি সিকিউরিটি, এন্ডপয়েন্ট সিকিউরিটি নিয়ে কাজ করবেন।

যেসব কোম্পানি বিটল্সের কাছে সাইবার সিকিউরিটি পরামর্শ নিতে আসবে তাদেরকে একজন সিআইএসএসপি (সার্টিফাইড ইনফরমেশন সিস্টেমস সিকিউরিটি প্রোফেশনাল) সার্টিফাইড তত্ত্বাবধায়কের নিরীক্ষণের নিয়ন্ত্রণে বিটলসের নিজস্ব প্ল্যাটফর্মের মাধ্যমে কাজ করার সুযোগ করে দেওয়া হবে। হ্যাকাররা সিকিউরিটি টেস্ট করবেন এবং এর সম্ভাব্য সমাধান কি সেটাও জানিয়ে দেবেন। এর বিনিময়ে হ্যাকারদের সম্মানি দেওয়া হবে এবং হল অব ফেমে তাদের নাম রাখা হবে। তবে ব্যাংক, অর্থনৈতিক সংশ্লিষ্ট প্রতিষ্ঠান এবং নির্বাচিত ক্লাইন্টদের ক্ষেত্রে ক্রাউড সোর্সিং এর পরিবর্তে বিটল্সের রেড টিম দিয়ে কাজ করানো হবে।

এ ব্যাপারে বিটল্সের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা (সিইও) মো. মুকিত হালিম বলেন, বাংলাদেশের হ্যাকারদের দেখভাল না করার কারণে তারা হারিয়ে যাচ্ছে। বাংলাদেশের হ্যাকারদের যত্ন করলে এবং তাদের সুযোগ দিলে আগামীতে তারা দেশের জন্য বড় অ্যাসেট হিসেবে কাজ করতে পারবে। বাংলাদেশের সাইবার স্পেসকে সুরক্ষিত করা এবং নিরাপদ রাখার জন্য বিটল্স ডিফেন্স বিভাগসহ বিভিন্ন বেসরকারি প্রতিষ্ঠানের সাথে কাজ করছে বলেও তিনি উল্লেখ করেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *