সোমবার সেপ্টেম্বর ২৫, ২০১৭ || ১০ই আশ্বিন, ১৪২৪ বঙ্গাব্দ

আমার বিরুদ্ধেও তদন্ত চলছে : ট্রাম্প

খবর২৪ডেস্ক
মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প শুক্রবার বলেছেন, যুক্তরাষ্ট্রের নির্বাচনে কথিত রুশ হস্তক্ষেপের অভিযোগের বিষয়ে তার বিরুদ্ধেও তদন্ত চলছে। কিন্তু সাত মাসের তদন্তে এখন পর্যন্ত এ বিষয়ে কেউ কোনো প্রমাণ বের করতে না পারলেও এনিয়ে তার প্রশাসন বেশ বেকায়দায় রয়েছে।

এদিকে রিপালিকান এ নেতা ওই তদন্তের কাজে নিয়োজিত মার্কিন বিচার মন্ত্রণালয়ের দ্বিতীয় শীর্ষ ব্যক্তিরও কঠোর সমালোচনা করেন।
খবরে বলা হয়, শুক্রবার টুইট বার্তায় মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প এ সমালোচনা করেন।

টুইট বার্তায় ট্রাম্প বলেন, ‘কেন্দ্রীয় তদন্ত সংস্থার (এফবিআই) পরিচালক জেমস কোমিকে বরখাস্ত করার বিষয়ে আমার বিরুদ্ধে তদন্ত চলছে। আর এই তদন্ত করেন এমন একজন ব্যক্তি, যিনি কোমিকে বরখাস্ত করতে আমাকে পরামর্শ দিয়েছিলেন!

ট্রাম্প আরো বলেন, ‘খুবই দুঃখজনক, এ ঘটনায় আমার জড়িত থাকার বিষয়ে তদন্তের সাত মাসেও কেউ কোনো প্রমাণ দিতে পারেননি। ’

খবরে বলা হয়, এফবিআইয়ের পরিচালক কোমিকে বরখাস্তের বিষয়ে ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল রড রোজেনস্টেইনও সুপারিশ করেছিলেন। পরে হোয়াইট হাউস কোমিকে বরখাস্তের সিদ্ধান্ত নেয়।

যুক্তরাষ্ট্রে বিগত প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে রাশিয়ার কথিত হস্তক্ষেপের অভিযোগ তদন্তে কোমি নেতৃত্ব দিচ্ছিলেন। বলা হয়, এ কারণেই কোমিকে সরিয়ে দেওয়া হয়।

ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল রড রোজেনস্টেইন এই তদন্তের দায়িত্ব পান। পরে স্পেশাল কনসাল রবার্ট মুলারকে এই তদন্তের দায়িত্ব দেয়া হয়।

এদিকে চলতি সপ্তাহে মার্কিন সংবাদমাধ্যম জানায়, প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের বিরুদ্ধে বিচারের সম্ভাব্য বাধাগুলোর বিষয়ে মুলার তদন্ত করছেন।
গত বৃহস্পতিবার বিভিন্ন সংবাদমাধ্যমের খবরে বলা হয়, যুক্তরাষ্ট্রের বিচার প্রক্রিয়ায় বাধা দেয়ার অভিযোগে ট্রাম্পের বিরুদ্ধে তদন্ত শুরু হয়েছে।

বিগত মার্কিন নির্বাচন নিয়ে রুশ হস্তক্ষেপের বিষয়ে চলমান তদন্ত কাজে ট্রাম্প কোনভাবে বাধা দিয়েছেন কিনা, তা সাব্যস্ত করতেই এই তদন্ত হচ্ছে। রবার্ট মুলার এই তদন্ত কাজের নেতৃত্ব দিচ্ছেন।

এরআগে গত মে মাসে প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প জোর দিয়ে বলেছিলেন যে তার বিরুদ্ধে কোন তদন্ত হচ্ছে না।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *